নন্দীগ্রামে মৎস্য হ্যাচারির জরিমানা, আলুর বাজার মনিটরিং

তাজা খবর করেসপন্ডেন্ট :: বগুড়ার নন্দীগ্রামে অনুমোদনহীন হরমোন ব্যবহারের দায়ে মৎস্য হ্যাচারি মালিকের জরিমানা সহ হাটবাজারে ইলিশ মাছ ক্রয় বিক্রয়ের দায়ে মাছ ব্যবসায়ীর জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত।

গোপন তথ্যের ভিত্তিতে রোববার (১৮ অক্টোবর) বিকেলে উপজেলার রণবাঘা বাজারের পাশে শহরকুড়ি এলাকার মাস্টার হ্যাচারিতে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. নুরুল ইসলাম।

অভিযানে অনুমোদনহীন হরমোন ব্যবহারের সত্যতা পেয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর ৫৩ ধারায় মাস্টার হ্যাচারির মালিক রেজাউল করিমের ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমান আদালত।

এছাড়া উপজেলার কুন্দারহাটে সাপ্তাহিক হাটবাজার চলাকালে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইলিশ মাছ ক্রয় বিক্রয়ের দায়ে মৎস্য সংরক্ষণ আইনে এক মাছ ব্যবসায়ীর ৫শ টাকা জরিমানা করা সহ জব্দকৃত মাছ এতিমখানায় প্রদান করেন ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক মো. নুরুল ইসলাম। পরে আলুর বাজার মনিটরিং করেন তিনি।

এসময় উপজেলা সিনিয়র মৎস্য অফিসার ফেরদৌস আলী ও থানার এসআই রেজাউল করিম রেজা সহ একদল পুলিশ সঙ্গে ছিলেন।

এসব তথ্য নিশ্চিত করে ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক মো. নুরুল ইসলাম বলেন, জনস্বার্থে আমাদের এ অভিযান পরিচালনা অব্যাহত থাকবে।

উল্লেখ্য, ১৪ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত ২২ দিন ইলিশ মাছ আহরণ, পরিবহন, বিপণন ও মজুত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। মৎস্য সংরক্ষণ আইন সংশোধন করে ইলিশ আহরণ নিষিদ্ধের এ সময়সীমা নির্ধারণ করা হয়েছে। গত ১২ অক্টোবর সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এ তথ্য দেন।

ডেস্ক/তাজাখবর/নজরুল ইসলাম দয়া

 

সংবাদটি শেয়ার এবং লাইক করুন