নন্দীগ্রামে অবৈধ ফার্মেসী বন্ধে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান শুরু

তাজা খবর করেসপন্ডেন্ট :: গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর বগুড়ার নন্দীগ্রামে গ্রাম পর্যায়ের অনুমোদনহীন ফার্মেসী ও একই দোকানে কীটনাশক, খাবারসহ দাহ্য পদার্থ বিক্রয় বন্ধে অভিযানে নেমেছে ভ্রাম্যমান আদালত। আতঙ্কে রয়েছে অসাধু ব্যবসায়ীরা।

গত মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার বুড়ইল ইউনিয়নের পেংহাজারকি কালানী বাজারে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. নুরুল ইসলামের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালতের একটি টিম অভিযান চালায়। সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে সাথে ছিলেন থানার এসআই তৌহিদুল ইসলাম।

শুরুতেই কালানী বাজারে একটি ফার্মেসীতে অভিযান চালানো হয়। ড্রাগের লাইসেন্স দেখাতে ব্যর্থ হয়েছেন দোকানী। খবর পেয়ে ৫জন অসাধু ব্যবসায়ী দোকান বন্ধ করে সটকে যায়। মুকুলের ফার্মেসীতে যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট খুঁজে পায় ভ্রাম্যমান আদালত। প্রথমবার কঠোর ভাষায় সতর্ক করে অনুমোদনহীন ফার্মেসী বন্ধ করতে বলেছেন বিচারক নুরুল ইসলাম। এসময় শতাধিক জনসাধারণ উপস্থিত ছিলেন।

সুত্রমতে, অনুমোদনহীন ফার্মেসীগুলোতে অশিক্ষিত দোকানী সহ বিক্রি হচ্ছে যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট ও সিরাপ। জ্বর, সর্দি, কাশি এবং ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীদের অনুমান করে দেওয়া হয় বিভিন্ন ওষুধ। ড্রাগের লাইসেন্স ছাড়াই উপজেলাজুড়ে ফার্মেসী ও হাতুরে ডাক্তারদের তৎপরতা বেড়েই চলেছে।

অন্যদিকে বিভিন্ন গ্রামের বাজারে একই দোকানে খাবার সামগ্রীর পাশাপাশি কীটনাশক, সার, গবাদিপশুর ওষুধ, মাছ ও পশুর খাদ্য বিক্রির হিড়িক পড়েছে। লাইসেন্স ছাড়াই মুদি দোকানে ডিজেল, পেট্রোল, কেরোসিন, ব্যাটারির পানি ও লুব্রিকেন্ট বিক্রয় করা হচ্ছে। কেউ কেউ উপজেলা কৃষি অফিস থেকে লাইসেন্স নিয়েও অনিয়ম করছেন। ফলে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছেন সাধারণ মানুষ।

উপজেলা কৃষি অফিসার মো. আদনান বাবু বলেন, আমাদের মনিটরিং অব্যহত রয়েছে। লাইসেন্স নিয়ে বিধিমালার বিরুদ্ধে গিয়ে কেউ যদি খাবার সামগ্রীর দোকানে কীটনাশক বিক্রয় করে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. নুরুল ইসলাম বলেন, গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর বিষয়টি নজরে এসেছে। নিরাপদ খাদ্য ও নিরাপদ ওষুধ নিশ্চিত করতে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান শুরু করা হয়েছে। অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ডেস্ক/তাজাখবর/এনআর

 

সংবাদটি শেয়ার এবং লাইক করুন