নন্দীগ্রামে অপবাদ দিয়ে গৃহবধুকে গ্রামছাড়া করল মোড়লরা

তাজা খবর, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট :: বগুড়ার নন্দীগ্রামে গ্রাম্য সালিশে এক গৃহবধুকে (২২) স্বামী-সন্তানসহ গ্রামছাড়া করেছে গ্রাম্য মোড়লরা। একই সালিশে একজনের কাছ থেকে জরিমানাও আদায় করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

গত মঙ্গলবার উপজেলার ভাগবজর মধ্যপাড়ায় এঘটনা ঘটে। এনিয়ে এলাকায় ব্যাপক হৈচৈ পড়েছে।

ভূক্তভোগী পরিবারের দাবি, তাঁরা ভূমিহীন। গ্রামছাড়া করে বাড়ির জায়গার দখল নেওয়ার জন্য প্রভাবশালীরা মিথ্যা অপবাদ দিয়েছে। মোড়লরা প্রভাবশালী ও ধনবান হওয়ায় থানায় অভিযোগ করেননি।

স্থানীয়রা ও ভূক্তভোগীর পরিবার জানিয়েছে, ভাগবজর মধ্যপাড়া রাস্তার পাশে সরকারি জায়গায় বাড়ি করে দিনমজুর আব্দুল হাকিম তাঁর স্ত্রী-সন্তান নিয়ে বসবাস করেন। বাড়ির জায়গা দখলের জন্য উৎপেতে ছিল স্থানীয় আশরাফ আলী ও আমিনুর। ধান কাটার কাজের জন্য হাকিম এলাকার বাইরে যাওয়ার সুযোগ নেয় প্রভাবশালীরা।

মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে দিনমজুর হাকিম বাড়িতে না থাকার সুযোগে পরিকল্পিতভাবে আনোয়ার হোসেন (২৭) নামের একজন কৌশলে ঘরে প্রবেশ করে গৃহবধুকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়।

সে ওই গ্রামের আজগর আলী জলিলের ছেলে।

ফিল্ম স্টাইলে গ্রাম্য মোড়লরা ওই গৃহবধুর ঘরের দরজা লাগিয়ে হৈচৈ শুরু করলে গ্রামের শতাধিক লোকজন উপস্থিত হয়। পরে রাতেই ঘটনাস্থলে সালিশ বসিয়ে ছেলের কাছ থেকে ১৮ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয় বলে জনশ্রুতিতে জানা গেছে।

সালিশে গৃহবধুর পিতার বাড়ির লোকজনকে ডেকে শতাধিক লোকজনের উপস্থিতিতে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে তাদের গ্রামছাড়া করা হয় বলে অভিযোগ করেন স্বামী আব্দুল হাকিম। তিনি বর্তমানে স্ত্রী-সন্তানকে নিয়ে শ্বশুরবাড়ি পৌর এলাকার নামুইট স্কুলপাড়ায় রয়েছেন।

ওই গৃহবধুর মা বলেন, গ্রামছাড়া করে বাড়ির জায়গার দখল নেওয়ার জন্য মধ্যরাতে নাটক সাজিয়ে মেয়ের বাড়িতে ডেকে গ্রাম্য সালিশে আমার মেয়েকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে এলাকাছাড়া করেছে। আমরা গরীব। তাই থানায় যাইনি।

অভিযুক্ত গ্রাম্য মোড়ল আশরাফ আলী ও আমিনুরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তাঁরা বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য সংবাদকর্মীদের ম্যানেজ করার চেষ্টায় ব্যর্থ হন।

এ প্রসঙ্গে কুমিড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ (ইন্সপেক্টর) আজিজুর রহমান বলেন, বিষয়টি শুনেছি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ডেস্ক/তাজাখবর/এনআর

 

সংবাদটি শেয়ার এবং লাইক করুন