কোয়ারেন্টিন ভাঙায় দুই লন্ডনির ৭ দিনের জেল

তাজা খবর করেসপন্ডেন্ট: সিলেটে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন নীতি না মানার কারণে ২ যুক্তরাজ্য ফেরত প্রবাসীকে ৭ দিনের জেল ও ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৩০ মার্চ) রাতে তাদের এ জেল জরিমানা করা হয়।

হোটেল স্টার প্যাসিফিক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্রবাসীরা হোটেলে ফেরার পর জানিয়েছেন চুল কাটতে তারা বের হয়েছিলেন।

হোটেল ও পুলিশসূত্রে জানা যায়, গত ২২ মার্চ তারা যুক্তরাজ্য থেকে দেশে ফেরেন। তারা দু’জন হলেন আব্দুন নূর ও রউফ আলম হোসেন। এসময় সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক তাদের হোটেল স্টার প্যাসিফিকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়।

মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তারা হোটেল থেকে বের হয়ে যান। এসময় হোটেল কর্তৃপক্ষ পুলিশকে বিষয়টি জানায়। পরে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে তারা হোটেলে ফেরার পর কোয়ারেন্টিন নীতি ভাঙায় তাদেরকে ৭ দিনের জেল ও ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা প্রদান করেন জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার মো. মেজবাহ উদ্দিন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে মো. মেজবাহ উদ্দিন বলেন, ‘প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকা অবস্থায় তারা ২ জন হোটেল থেকে বের হয়ে যান। পরে সন্ধ্যায় ফিরে এলে তাদের ২ জনকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা ও ৭ দিন করে জেল প্রদান করা হয়।’

হোটেল স্টার প্যাসিফিকের কর্মকর্তা জয় দেব দাস বলেন, ‘গত ২২ মার্চ তাদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনের জন্য পাঠানো হয়। সোমবার তাদের করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল। মঙ্গলবার রাতে তাদের রিপোর্ট আসার কথা ছিল। তবে দুপুরে তারা নিচে যাওয়ার কথা বলে হোটেল থেকে বের হন। এসময় আমরা বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করি। পরে সন্ধ্যায় ফেরার পর তারা আমাদের জানিয়েছেন চুল কাঁটতে তারা হোটেল থেকে বের হয়েছিলেন। এসময় ম্যাজিস্ট্রেট তাদের ২ জনকে জেল-জরিমানা প্রদান করেন।’

রাত ১১ টার দিকে তিনি জানান, তাদের ২ জনের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।

এবিষয়ে মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম) বিএম আশরাফ উল্ল্যাহ তাহের জানান, রাতেই তাদের জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এর আগে গত ২১ মার্চ নগরের আম্বরখানাস্থ হোটেল ব্রিটানিয়া থেকে এক পরিবারের ৯ সদস্য হোটেল থেকে পালিয়ে নিজ বাড়িতে যান। পরে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা শুরু হলে প্রশাসন ও হোটেল কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে তাদের আবার হোটেল ফিরিয়ে আনা হয়। এঘটনার পরে ব্রিটানিয়া হোটেলে আর কোনো যাত্রী না পাঠানোর সিধান্ত নেয় প্রশাসন। এর আগে গত ২০ মার্চ হোটেল লা-ভিস্তায় যুক্তরাজ্যফেরত এক যুবক কোয়ারেন্টিন ভেঙে বিয়ের আয়োজন করেন। বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার সময় কনেপক্ষসহ আরও ৫০ জন অতিথি যোগ দেন। এসব ঘটনার পর থেকে কোয়ারেন্টিন নীতি নিশ্চিত করতে কঠোর হয় সিলেটের প্রশাসন।

 

সংবাদটি শেয়ার এবং লাইক করুন