এবার অন্যজনের অবৈধ স্থাপনা দখলে নেওয়ার চেষ্টায় ছাত্রলীগ নেতা (!)

তাজা খবর, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট :: বগুড়ার নন্দীগ্রামে মহাসড়কের জায়গায় মুদি ও ফল ব্যবসায়ীর স্থাপনা জোরপূর্বক দখলের অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে।

বুধবার দোকানি জহির শেখ অভিযোগ করেন, বগুড়া-নাটোর মহাসড়কের জায়গায় রণবাঘা বাসস্ট্যান্ডে স্থাপনা গড়ে ১৪ বছর ধরে মুদি এবং ফলের দোকান দিয়ে ব্যবসা করছেন জহির শেখ। রুপম নামের ব্যক্তি নিজেকে জমির মালিক দাবি করে সদর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি মিলন কুমার কর্মকারের কাছে ৪ লাখ টাকা দিয়ে সড়কের জায়গা বিক্রি করে দিয়েছে। এখন জায়গা ছেড়ে দিতে চাপ দিচ্ছে।

জানা গেছে, রণবাঘায় মহাসড়ের পাশে এবং হাটের জায়গায় দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করে চলেছেন কতিপয় প্রভাবশালীরা।

ওই দোকানি বলেন, আমি গরিব মানুষ। এখানে ব্যবসা করে আমার পরিবার চলে। এই জায়গা সরকারের। দীর্ঘদিন ব্যবসা করছি।

ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মিলন কুমার কর্মকার বলেন, দোকানি জহিরকে ঘর ভাড়া দিয়েছিল রুপম। জহির এই জায়গা নিজের পজিশন হিসেবে দাবি করছে। তবে এই পজিশন আমি ক্রয় করিনি। রুপম জায়গাটি রক্ষায় আমার সহায়তা চেয়েছে। তাই সহযোগিতা করছি।

রুপম বলেন, জহির শেখকে দোকান ঘর ভাড়া দিয়েছি। সে জমিটি নিজের দাবি করে জমির পেছনের অংশ অন্যের কাছে বিক্রি করার চেষ্টা চালিয়েছে। এজন্য আমার বন্ধু ছাত্রলীগ নেতা মিলন কুমারের সহযোগিতা চেয়েছি। তার কাছে আমি জমি-পজেশন বিক্রি করিনি।

উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক শুভ আহমেদ বলেন, ঘটনাটি লোকমুখে শুনেছি। ছাত্রলীগের নাম ভেঙে যদি কেউ অনৈতিক সুযোগ নেয় তাহলে অবশ্যই সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিষয়ে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর বগুড়ার নির্বাহী প্রকৌশলী আসাদুজ্জামান বলেন, মহাসড়কের জায়গা বা পজিশন কেউ ক্রয়-বিক্রয় করতে পারে না। কেউ বিক্রয় করলে আমরা অবশ্যই প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

 

সংবাদটি শেয়ার এবং লাইক করুন