রূপগঞ্জ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় মালয়েশিয়া প্রেসক্লাবের শোক প্রকাশ

প্রেসক্লাবের এক শোক বার্তায় সদ্যসরা, অগ্নিকান্ডে নিহত এবং আহতদের যথাযথ তালিকা প্রকাশ করে তাদের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দাবি করেন। নিহতদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত ও আহতদের সুস্থতা কামনা করা হয় এবং দুর্ঘটনা সংশ্লিষ্ট পরিবারগুলোর প্রতি গভীর সমবেদনা জানানো হয়।

ক্লাবের সভাপতি মনির বিন আমজাদ, সিনিয়র সহ-সভাপতি আহমাদুল কবির ও সাধারণ সম্পাদক বশির আহমেদ ফারুক সহ-সভাপতি আশরাফুল মামুন, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম হিরণ, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মো. শাহাদাত হোসেন, কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ আরিফুজ্জামান, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আরিফুল ইসলাম, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক আবির হোসেন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মো. মনিরুজ্জামানসহ প্রেস ক্লাবের সদ্যসরা সেজান জুস কর্তৃপক্ষের নিয়মনীতির কঠোর সমালোচনা করেন।

সভাপতি মনির বিন আমজাদ বলেন, ‘দুর্ঘটনা কবলিত ভবনে কোনো ফায়ার এক্সিট ছিল না এবং মূল গেইট বন্ধ ছিল। সেখানে কাজ করতেন প্রায় দুইশ’র অধিক শ্রমিক, যাদের মধ্যে অর্ধ শতকের অধিক অগ্নিদগ্ধে মৃত্যুবরণ করেছে। শ্রমিকদের নিরাপত্তার বিষয় সেখানে অনুপস্থিত ছিল। শ্রমিকদের জীবন হুমকিতে রেখে মালিকপক্ষের লাভবান হওয়ার বিষয়টি প্রতীয়মান হয়েছে। কাজেই হতাহত শ্রমিকদের ন্যায্য অধিকার ও তাদের ক্ষতিপূরণ বুঝে পেতে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানাচ্ছি।

এছাড়াও সিনিয়র সহ-সভাপতি আহমাদুল কবির বলেন, ‘জনজীবন যেখানে আজ বিপন্ন, সাধারণ মানুষ যেখানে একটি হাহাকার পরিস্থিতি মোকাবিলা করছেন, ঠিক সে মুহূর্তে অগ্নিদগ্ধ শ্রমিকদের অসহায় পরিবারগুলোর আর্তনাদে আকাশ বাতাস ভারী হচ্ছে। একদিকে সরকারের জারি করা লকডাউন অন্যদিকে অসহায় মানুষগুলোকে পরিবারের খাবার জোগাতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দিকবিদিক ছুটতে হচ্ছে। হতাহতদের ক্ষতিপূরণ ও ঘটনার বিচার বিভাগীয় সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করছি।’ বিডি প্রতিদিন

 

সংবাদটি শেয়ার এবং লাইক করুন