প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরে অন্য রকম ঈদ আনন্দ

তাজা খবর করেসপন্ডেন্ট :: মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া উপহারের পাকা ঘরে জীবনের প্রথম ঈদ করেছেন কয়েকটি পরিবারউপকারভোগী পরিবারগুলো প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার সামগ্রীও পেয়েছেন ঈদের দিন তাদের জন্য গরু কোরবানি করা হয়। 

বগুড়ার নন্দীগ্রামে গৃহহীন ভূমিহীন পরিবারের মানুষগুলো এবার নিজের নতুন ঠিকানার নতুন ঘরে ঈদ করতে পেরে এক অন্য রকম আনন্দ পেয়েছেন বলে অনুভূতি প্রকাশ করেছেন। 

উপকারভোগীদের সাথে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগিতে অংশ নেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) শিফা নুসরাত। প্রধানমন্ত্রীর উপহারপ্রাপ্ত ঘরে গৃহহীন ভূমিহীন পরিবারের মাঝে প্রত্যেককে কেজি করে ২৭০ কেজি কোরবানির মাংস বিতরণ করেন তিনি।

জানা গেছে, কাতার ভিত্তিক একটি সংস্থা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. আবু তাহের সহ উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের আর্থিক সহযোগিতায় কোরবানির গরু ক্রয় করে। পরে সদর ইউনিয়নের গোছন গ্রামে আশ্রয়ন গুচ্ছগ্রামে বসবাসরত দরিদ্রদের জন্য ঈদের দিন গরু কোরবানি করা হয়। এছাড়া কাথম কোয়ালিটি ফিড এর সহায়তায় বুড়ইল ইউনিয়নের চাপিলাপাড়া গুচ্ছগ্রাম এবং ভাটগ্রাম ইউনিয়নের রায়পুর কুস্তা গুচ্ছগ্রামে দরিদ্রদের মাঝে কোরবানির মাংস দেওয়া হয়েছে। 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) শিফা নুসরাত বলেন, তাদের জন্য কোরবানি দেওয়া হয়েছে। প্রত্যেককে কেজি করে মাংস দেওয়া হয়। আশ্রয়ন গুচ্ছগ্রামের মানুষের সাথে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করে আত্মতৃপ্তি পেয়েছি।

সদর ইউনিয়নের গোছন আশ্রয়নের ঘরে বসবাসরত দেলোয়ার হোসেন খোকন সরদার বলেন, ঈদে আমাদের জন্য কোরবানি করা হয়েছে এবং মাংস বিতরণ করেছে। আমরা গরিবরা সত্যিই ভাগ্যবান।

নিজের ঘরে প্রথম ঈদ করেছেন তারা

ভাটরা ইউনিয়নের রঞ্জয়তেঘর কামারপুকুরের আশ্রয়নে ঘর পেয়ে প্রথম বারের মতো ঈদ করেছেন চারটি পরিবার। তারা হলেনদিনমজুর ইউনুস আলী, দিনমজুর নাবিউল, দিনমজুর আনোয়ার দিনমজুর আব্দুল কুদ্দুস। তারা বলেন, সপনেও ভাবিনি, ইট্যার ঘরে থাকমু। প্রধানমন্ত্রী হামাকেরেক থাকার ঘর দিছে। এই ঘরেত ঈদ করে হামরা অনেক খুশি। আনন্দের অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে আবেগাপ্লুত হয়েছেন তারা

দিনমজুরের কাজ করেন ইউনুস আলী। স্ত্রী দুই সন্তানসহ পরিবারের সদস্য চারজন। প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরে বছর কোরবানির ঈদ করেছেন তারা

ইউনুস আলী বলেন, মানষ্যের বাড়িত কাজ করি, আগে বউছোল লিয়্যা মানষ্যের বাড়িত থাকিচি। সরকার হামাকেরে অনেকবড় উপকার করচে। লতুন বাড়ি দিছে, এই বাড়িত বউছোল লিয়্যা ঈদ করনু। লিজ্যের বাড়িত ঈদ করার আলন্দটা অনেক সুখের

থালতামাঝগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আব্দুল মতিন জানান, গোপালপুর হাতিখোঁচা পুকুর আশ্রয়নে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরে আফজাল হোসেন, এজার উদ্দিন, ঝরনা বেগম, হাসিনা বেওয়া, মাহমুদা বেগম, মাকসুদা বেওয়াসহ ১০ পরিবার প্রথম বারের মতো ঈদ করেছেন

 

সংবাদটি শেয়ার এবং লাইক করুন