নন্দীগ্রামে বর আসার আগেই কনের বাড়িতে হাজির ম্যাজিস্ট্রেট

তাজা খবর, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট :: বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলায় গোপনে রাতে বাল্যবিয়ের প্রস্তুতি চলছিল। রান্নাসহ সব আয়োজন সম্পন্নের পর অপেক্ষায় ছিল বর আসার। কিন্তু বর আসার আগেই কনের বাড়িতে হাজির নন্দীগ্রাম উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. রায়হানুল ইসলাম।গত সোমবার রাত ১১ টার দিকে নন্দীগ্রাম ভাটরা ইউনিয়নের ভরমাজগ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার মণিনাগ গ্রামের চান্দু মিয়ার মেয়ে (১৭) সঙ্গে একই এলাকার ভরমাজগ্রামের মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে মোশারফ হোসেন (১৮) বিয়ের আয়োজন করা হয়। রাতের আধারে গোপনে ভরমাজগ্রামে কনের মামা ছাইদুল ইসলামের বাড়িতে আয়োজন করা হয়। খবর পেয়ে কনের মামার বাড়িতে পুলিশ নিয়ে হাজির হয় ম্যাজিস্ট্রেট। বরযাত্রী তখনো আসেনি। ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে বাল্যবিবাহের আয়োজন করায় কনের মামাকে ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পাশাপাশি কনেকে ১৮ বছরের আগে বিয়ে দিবেন না বলে অভিভাবকের কাছ থেকে মুছলেকা নেয়া হয়।

তবে কনের বাবা-মা ঢাকায় একটি গার্মেন্টেসে চাকুরি করতো। সেখানে থেকে এসে কনের মামা ছাইদুল ইসলামের বাড়িতে বিয়ের আয়োজন করেন।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ রায়হানুল ইসলাম বলেন, বাল্যবিয়ের দেয়ার অভিযোগে কনের মামাকে দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া কনেকে ১৮ বছরের আগে বিয়ে দিবেন না বলে অভিভাবকের কাছ থেকে মুছলেকা নেয়া হয়।

 

 

সংবাদটি শেয়ার এবং লাইক করুন