খুলনায় মাদরাসাছাত্রীকে দলবেঁধে ধর্ষণ, আটক ২

তাজা খবর অনলাইন ডেস্ক : খুলনার ডুমুরিয়ায় ৭ম শ্রেণির এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৩১ মে) তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়।

সোমবার (৩০মে) রাতে অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে।

ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রী ও তার পরিবার জানায়, চিংড়া গ্রামের হতদরিদ্র পরিবারের ষোড়শী মেয়ে গত রমজান মাসে মাদ্রাসা ছুটি থাকায় প্রতিবেশী সিরাজুল গাজীর বাড়িতে গৃহস্থলীর কাজে যায়। এক পর্যায়ে ২২ রমজানে উপজেলার বাগদাড়ি এলাকার গরু ব্যবসায়ী মহিদুল মোড়ল ও কারিমুল শেখ ওই বাড়িতে বেড়াতে যায়। সেখানে ঐ মাদ্রাসা ছাত্রীর প্রতি কু-নজর পড়ে তাদের।

এরপর ঈদুল ফিতরের দিন বাড়ির মালিক সিরাজুলের স্ত্রী ইরানি বেগম বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে মাদ্রাসা ছাত্রীকে নিয়ে বাগদাড়ি এলাকায় যায়। রাতে সেখানে ঐ ছাত্রীকে কারিমুল শেখের একটি নির্জন ঘরে থাকতে দিয়ে প্রথমে গরু ব্যবসায়ী মহিদুল মোড়লকে ঢুকিয়ে দিয়ে বাইরে থেকে ছিটকিনি লাগিয়ে দেয়। এরপর রাত আনুমানিক তিনটার দিকে বাড়ির মালিক কারিমুল ওই ঘরে প্রবেশ করলে মহিদুল বেরিয়ে আসে এবং পর্যায়ক্রমে তারা তাকে ধর্ষণ করে।

এরপর ২১ মে মাদ্রাসা থেকে বাড়ি ফেরার পথে আবারও মহিদুল মোড়ল তাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে সন্ধ্যার পর স্থানীয় রাশেদুলের ঘেরের বাসায় নিয়ে ধর্ষণ করে। একই রাত দুইটার দিকে গৃহকত্রী, ধর্ষণে সহযোগী ইরানি বেগমের স্বামী সিরাজুল গাজী ও ভাড়ায় মোটর সাইকেল চালক মনি গাজী ঘটনাস্থলে গিয়ে সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে বাড়ি আনার পথে সাহস ইটভাটার নিকটে পৌঁছে ওই দুইজন তাকে ফের ধর্ষণ করে। এরপর ভোর রাতে তাকে নিজ বাড়িতে ফিরিয়ে দিয়ে যায় তারা।

বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর ওই ছাত্রী বাদী হয়ে ধর্ষণের ঘটনায় সরাসরি জড়িত ৫ জনকে আসামি করে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডুমুরিয়া থানার তদন্ত ওসি মোঃ মাসুদুর রহমান জানান, ধর্ষণে সহযোগী ইরানি বেগমের স্বামী সিরাজুল গাজী ও ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালক মনি গাজীকে গতকাল রাতে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের ৩১ মে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

ডুমুরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সেখ কনি মিয়া বলেন, ঘটনার সাথে জড়িত ২ জনকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

 

সংবাদটি শেয়ার এবং লাইক করুন